জানেন আইপিএল থেকে কতো কোটি আয় করছে শাহরুখ?













আইপিএল মানেই বিনোদন আর কোটি কোটি টাকার ঝনঝনানি। পৃথিবীর সবচেয়ে দামি ফ্রাঞ্চইজি লিগ আইপিএল। ব্যাট-বলের এই যুদ্ধে যোগ হয় বলিউডের সেরা তরাকারা। আর তাতে কোটি কোটি টাকার ‘খেলা’।

আইপিএল যেন যথার্থ অর্থেই ক্রোড়পতি লিগ। বিনোদন, গ্ল্যামার, ক্রিকেট এই পাঁচমিশেলি থিওরিতেই আইপিএল সুপারহিট। সমালোচকরা প্রত্যেক বছরেই কোটি কোটি টাকা অর্থের ‘অপব্যবহার’ নিয়ে সরব হন। কিন্তু তাতে কিছুই এসে যায় না লিগ আয়োজক ও ফ্র্যাঞ্চাইজিদের।

জনপ্রিয়তার সঙ্গে সঙ্গেই এবার মুনাফাতেও অনন্য নজির সৃষ্টি করল আইপিএল। চলতি ২০১৮ আইপিএল থেকে প্রতিটি ফ্র্যাঞ্চাইজি প্রায় ১৫০ কোটি টাকা আয় করতে চলেছে। এমনটা নয় যে এর আগেও মুনাফার অঙ্ক আকাশ ছোঁয়নি। বিশাল লাভের মুখ দেখেছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো। তবে এই প্রথমবার প্রত্যেক ফ্র্যাঞ্চাইজি একই পরিমাণ অর্থ আয় করবে।

কী করে বিপুল এই আয়? জানা যাচ্ছে, কেকেআর, সানরাইজার্স, মুম্বই, চেন্নাই, রাজস্থান রয়্যালস, ডেয়ারডেভিলস, কিংস ইলেভেন, আরসিবি— সব দলগুলির স্পনশরশিপ থেকে আয় ৫৫-৬০ কোটি টাকা।

নতুন স্পনসরের সৌজন্যে গত দু’বছরের তুলনায় স্পনসরশিপ থেকে উপার্জন বেড়েছে ৫৫৪ শতাংশ। আইপিএল-এর সম্প্রচারকারী হিসেবে স্টার স্পোর্টসব নেটওয়ার্ক যুক্ত হওয়ায় চলতি মৌসুমে বিসিসিআইয়ের আয়ের অঙ্ক ১৭ হাজার কোটি টাকা ছুঁয়েছে।

জোড়া এই আয়ের সমীকরণেই ফুলে ফেঁপে উঠছে প্রত্যেক ফ্র্যাঞ্চাইজির কোষাগার। হিসেবে জানা যাচ্ছে, প্রতিটি ফ্র্যাঞ্চাইজির মোট লাভের পরিমাণ প্রায় ২০০কোটি।বোর্ডকে প্রাপ্য লভ্যাংশ দিয়েও প্রতি দলের কাছে থাকবে ১৫০ কোটি টাকার কাছাকাছি। সবমিলিয়ে, কোটিপতি লিগের অন্য নাম যে আইপিএল তা নিয়ে কোনও সন্দেহই নেই।