টাইগার শ্রফের প্রেমে মজেছে যে নায়িকা













সদ্য মুক্তি পেল দিশা পাটানি ও টাইগার অভিনীত বলিউড ছবি বাগি ২। ইতিমধ্যে আহমেদ খান পরিচালিত এই ছবিটি বক্সঅফিসে বেশ সাড়া ফেলেছে। যদিও বোদ্ধামহলে ছবিটি নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা আছে। তবে পর্দায় টাইগার-দিশার রসায়ন বক্সঅফিস পরীক্ষায় কাঁটায় কাঁটায় উতরে গেছে। টাইগার তো অ্যাকশন আর নাচ দিয়ে নিজের জাত চিনিয়েছেন আগেই। এবার দিশাও তাঁর কারিশমা দেখালেন। বলিউডের জগতে মাত্র দুই বছর দিশার। কিন্তু এরই মধ্যে যে ঝড়ের গতিতে এগোচ্ছেন তিনি তাতে স্পষ্টই বোঝা যাচ্ছে দিশা দমানো কঠিন!

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দিশা পাটানির অনুসারী হাজার পেরিয়ে অনেক আগেই লাখ ছুঁয়েছে। ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি ছবিতে মাত্র ১৫ মিনিটের উপস্থিতিতে জয় করেছেন সবার মন। শুধু ভারত না, উপমহাদেশের লাখো তরুণের ‘ক্রাশ’-এর তকমাও পেয়েছেন তিনি। এত কম সময়ে এত জনপ্রিয়তা কী রকম লাগছে? অবাকের সুরে বলেন দিশা, ‘নিজেকে ভাগ্যবতী বলে মনে করি। ইনস্টাগ্রামে আমার এক ফ্যান ক্লাব আছে।

এই ক্লাবের অধিকাংশই শিক্ষার্থী। ওরা খুবই ভালো। মাঝেমধ্যেই আমার জন্য কিছু না কিছু বানিয়ে পাঠায়। আমি আমার ভক্তদের শহরে গেলে অবশ্যই ওদের সঙ্গে দেখা করি। তখন সত্যি অবাক হই আমাকে সামনাসামনি না দেখেও ওরা কীভাবে আমার দ্বারা এত অনুপ্রাণিত। আমি এসব খুব উপভোগ করি।’

ছোট থেকেই অভিনেত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখেননি দিশা। প্রথমে ভাবতেন পশুচিকিৎসক হবেন। তারপর তাঁকে বিজ্ঞানী হওয়ার নেশা পেয়ে বসে। অবশেষে বৈমানিক হওয়ার জন্য বিটেক নিয়ে পড়াশোনা শুরু করেন দিশা। কিন্তু হঠাৎই তাঁর জীবনের মোড় ঘুরে যায়। বিটেক পড়া ছেড়ে বলিউডের জগতে পা রাখেন এই সুন্দরী।

পড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধুলাতেও সমান পারদর্শী দিশা। জাতীয় পর্যায়ের বাস্কেটবল খেলোয়াড় ছিলেন তিনি। বন্ধু ও সহশিল্পী টাইগারের সঙ্গে এ বিষয়ে খুবই মিল আছে দিশার। টাইগারও আগে নিয়মিত ফুটবল ও বাস্কেটবল খেলতেন। এ প্রসঙ্গে এই বলিউড নায়িকা লাজুক হেসে বলেন, ‘হ্যাঁ, আমি এবং টাইগার দুজনই স্পোর্টস পারসন। দুজনেই শারীরিক কসরত করতে ভালোবাসি। টাইগার খেলোয়াড় হিসেবে খুবই ভালো। ও বাস্কেট বল আর ফুটবল দুটোই ভালো খেলে।’

টাইগার এবং দিশার প্রেমের কথা বলিউডের আকাশে-বাতাসে বছরখানেক ধরেই উড়ে বেড়াচ্ছে। তাই স্বাভাবিকভাবেই কথায় কথায় উঠে আসে টাইগারের প্রসঙ্গ। টাইগারের আর কোন কোন গুণের কথা জানেন দিশা? মিষ্টি হেসে বলেন তিনি, ‘মানুষ হিসেবে টাইগার দারুণ। পর্দার টাইগারের সঙ্গে পর্দার বাইরের টাইগারের কোনো মিল নেই। ও ভীষণ অমায়িক, ভদ্র এবং শান্ত। কোনো ইগো নেই। মাটিতে পা রেখে চলে ও। নিজের কাজের ব্যাপারে খুবই ফোকাস টাইগার। আর ও ভীষণই পরিশ্রমী।’

এর আগে এক আলাপে টাইগার এই প্রতিবেদককে জানিয়েছিলেন যে তিনি দিশার হাসির বড় ভক্ত। তাই সেই ভারসাম্য বজায় রাখতেই এবার দিশার দিকে প্রশ্ন ছুড়ে দেওয়া, ‘টাইগারের কোন কোন দিক দিশাকে আকর্ষিত করে?’ প্রশ্নটা শুনে হেসে গড়িয়ে পড়েন এই বলিউড সুন্দরী। এরপর জবাব দেন, ‘টাইগারের যখন লম্বা চুল ছিল তখনো ভালো লাগত, এখন ছোট চুলেও ওকে দারুণ লাগে। আমিও ওর হাসির ভক্ত। টাইগারের ফিজিক থেকে শুরু করে সবকিছুই ভালো লাগে। আমার চোখে বলিউডে সবচেয়ে সুদর্শন টাইগার।’বাগি ২ ছবিতে টাইগারের সঙ্গে তালে তাল মিলিয়ে নেচেছেন দিশা।

এমনকি অ্যাকশনও করেছেন তিনি। টাইগারের মতো অ্যাকশন এবং ডান্সের সুপারহিরোর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করা কতটা কষ্টকর ছিল? এর উত্তরে দিশা বলেন, ‘খুবই কষ্টকর ছিল। নিজেকে চরিত্রের জন্য উপযুক্ত করে তুলতে অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে। তার ওপর টাইগার আমার নায়ক। টাইগারের গতির সঙ্গে গতি মেলাতে খুবই ঘাম ঝরাতে হয়েছে। অ্যাকশন এবং ডান্স সিনে ওর সঙ্গে পাল্লা দেওয়া খুবই কঠিন ছিল। নাচের অনুশীলনের সময় টাইগার একবার একটা স্টেপ করলে, আমাকে সেটা পাঁচবার করতে হতো। ওর মতো ডান্সারের সঙ্গে নাচ করা খুবই চ্যালেঞ্জিং ছিল। টাইগারকে দেখে অনুপ্রাণিত হয়েছি। আসলে পার্টনার ভালো হলে নিজের মধ্যেই এই তাগিদ আপনাআপনি চলে আসে।’

মাঝে গুঞ্জন উঠেছিল দিশা তাঁর পছন্দের কিছু নায়ক ছাড়া অন্য কারও সঙ্গে কাজ করতে রাজি নন। এ জন্য নাকি তিনি বেশ কিছু ছবি ছেড়ে দিয়েছেন। এই গুঞ্জন মুহূর্তে ফুঁ মেরে উড়িয়ে দিলেন দিশা। পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন পছন্দের ছবি পেলে যে কারও সঙ্গে কাজ করতে রাজি তিনি। তবে বলিউড সুপারস্টার শাহরুখের সঙ্গে কাজ করতে ভীষণ আগ্রহী দিশা। তাঁর স্বপ্নের নায়কের সম্পর্কে জানতে চাইলে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘শাহরুখ আমাকে ভীষণভাবে অনুপ্রাণিত করেন। ইন্ডাস্ট্রির বাইরে থেকে এসেও তিনি আজ বলিউডের কিং খান। তাঁর জীবনের সংগ্রামকে আমি খুব সম্মান করি।’

অভিনেত্রী হিসেবে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া অনুপ্রাণিত করে দিশাকে। প্রিয়াঙ্কার মেরি কম ছবিটির রিমেক হলে তিনি এই ছবিতে কাজ করতে চান। গ্ল্যামার জগতে থেকেও সাধারণভাবে থাকতে বেশি পছন্দ দিশার। তাই প্রায়ই কোনো সাজগোজ ছাড়া প্রকাশ্যে চলে আসেন তিনি। এ প্রসঙ্গে দিশা বলেন, ‘মেকআপ আমার একদম পছন্দ নয়। আমি আমার মতো করেই সবার সামনে আসতে চাই।’ তবে ডায়েট এবং ফিটনেসের ক্ষেত্রে খুবই কড়া দিশা।

সবশেষে উঠে এল টাইগারের সঙ্গে তাঁর রোমান্সের কথা। তাঁদের এই সম্পর্কের কথা কতটা সত্যি, তার জবাবে লাজুক হেসে বলেন দিশা, ‘এসবে এখন কান দিতে চাই না। শুধু মন দিয়ে নিজের কাজটা করতে চাই।’ নিজের কাজ বলতে দিশা বোঝালেন তাঁর পরের ছবি সংঘমিত্রার কথা। দক্ষিণ ভারতীয় এ ছবিতে দিশাকে দেখা যাবে আর্য ও জয়ম রবির বিপরীতে।