৯ দিন পর কান থেকে বের করা হলো তেলাপোকা













কেটি হোলে। স্বামী জর্ডান হোলেকে নিয়ে বেশ চমৎকার দিন কাটছিল যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের এই রমণীর। সুখী-সুন্দর জীবনের একমাত্র উপদ্রব হয়ে দাঁড়ালো তেলাপোকা। কেটি হোলের জীবন থেকে ঘুমই কেড়ে নিলো ছোট্ট এই প্রাণীটি। চলতি বছরের ১৪ এপ্রিল ঘুমানোর পর কেটির কানে ঢুকে যায় একটি তেলাপোকা। ওই তেলাপোকা বের করতে

চিকিৎসকদের সময় লাগে নয়দিন। আর ওই নয়দিন চরম কষ্টে কাটে কেটি হোলের। খবর ইন্ডিপেনডেন্ট।

ব্রিটিশ দৈনিক পত্রিকা ইন্ডিপেনডেন্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কেটি হোলের বাড়িতে তেলাপোকা উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় একটি তেলাপোকা নিধন সংস্থাকে খবর দেন তিনি। ওই সংস্থার লোক এসে কেটির বাড়ির প্রতিটি রুমে তেলাপোকা তাড়ানোর স্প্রে দিয়ে যান।
কিন্তু এপ্রিলের শুরুতে বাড়িতে আবার তেলাপোকা বাড়তে শুরু করে। কেটি ১৪ এপ্রিল সকালে ঘুম থেকে উঠে বুঝতে পারেন তার বাঁ কানে কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছে। কানের ভেতর পোকা জাতীয় কিছু ঢুকেছে। সেটি মাঝে মাঝেই নড়াচড়া করছে। কানে তুলো দিয়ে পরিষ্কার করতে গিয়ে তেলাপোকার পা বের হতেই ভয় পেয়ে যান তিনি। এরপরই চিকিৎসকের কাছে ছুটে যান কেটি। কানের ভেতর তেলাপোকাটিকে মারার ওষুধ দিলে সমস্যা আরও বেড়ে যায়।
প্রথম চিকিৎসক তেলাপোকা বের করতে না পারায় চিকিৎসক পরিবর্তন করেন তিনি। যান অন্য চিকিৎসকের কাছে। তেলাপোকার কিছু অংশ বের করতে পারলেও বেশ কিছুটা কেটির কানের ভেতরে থেকে যায়। ৯ দিন পর সবশেষ কেটির কান থেকে তেলাপোকাটির অবশিষ্ট অংশ বের করেন একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক।
সবশেষ অসহনীয় কষ্ট থেকে রেহাই পেলেন কেটি হোলের।